শুক্রবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং, দুপুর ২:১৯
শিরোনাম :
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সচেতন করতে হবে : বিএমপি কমিশনার বরিশাল জেলা ছাত্রদল সভাপতি মিঠু বহিষ্কার যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক তিন প্রেসিডেন্টের প্রকাশ্যে টিকা নেয়ার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে লক্ষাধিক করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি একাত্তরের ঘটনা ভুলে যাওয়া বা ক্ষমা করা যায় না: প্রধানমন্ত্রী ইরানের সঙ্গে চুক্তিতে ফিরতে চান বাইডেন! বরিশালে এডিসি জাকারিয়া রহমান জিকুর বদলী জনিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত নাগর্নো-কারাবাখ সংঘর্ষে আজারবাইজানের প্রায় ৩ হাজার সেনা নিহত গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দেশের প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত সেনাবাহিনী : সেনাপ্রধান

সাইক্লোন পরবর্তী মোবাইল সেবা পুনরুদ্ধারে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছে এমটব

ডেক্সরিপোর্ট  সুপার সাইক্লোন আম্ফানের পর সেবা পুনরুদ্ধারে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকমিউনিকেশন অপারেটরস অব বাংলাদেশ (এমটব)।

বুধবার (২০ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এমটব মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফরহাদ (অবঃ) বলেন, মোবাইল সেবাদাতা ও তাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা কোভিড-১৯ সংকটের সময়ে বাংলাদেশের নাগরিকদের জরুরী টেলিকম সেবা নিশ্চিত করতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এর মধ্যে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্পান আঘাতের পরেও উপকূল এলাকাগুলোতে যেন অত্যাবশ্যকীয় মোবাইল সেবা যেন চালু থাকে বা স্বল্প সময়ের মধ্যেই পুনরায় তা চালু করা যায় সেজন্য সজাগ ও সতর্ক থেকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

তবে টেলিযোগাযোগকে জরুরি সেবা বিবেচনা করে সাইক্লোনের সময় ও পরে পুনরায় সেবা চালু করতে সরকারের বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় দরকার; বিশেষ করে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের বিশেষ সহযোগিতা প্রয়োজন। তদুপরি, এই সময়ে জরুরি প্রয়োজনে সেবা পুনরুদ্ধারে চলাচলের জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সহায়তা প্রয়োজন। এই সময় জরুরি প্রয়োজনে সেবা পুনরুদ্ধারে চলাচলের জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সহায়তা প্রয়োজন এবং নাগরিকদের নিরবচ্ছিন্ন টেলিকম সেবা নিশ্চিত করাই মোবাইল সেবাদাতাদের উদ্দেশ্য বলে বার্তায় উল্লেখ করা হয়।

পূর্বের ঘূর্ণিঝড়গুলোতে মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ারগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার অভিজ্ঞতা থেকে এমন আহ্বান জানিয়েছে এমটব।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের বার্তা অনুযায়ী বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ ঘূর্ণিঝড় আম্পান বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। এরইমধ্যে দেশের সমুদ্র বন্দরে মহাবিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে।