বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং, সকাল ৬:২৯
শিরোনাম :
করোনায় ২৬নং ওয়ার্ডের চার মৃত ব্যাক্তির স্বরনে মহানগর মুছলিহীন ক‌মি‌টির উদ্যোগে দোয়া অনুষ্ঠিত ভোলায় জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১ ‘বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক নতুন মাত্রায়’ ঘণ্টায় ১১৭ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে ‘শক্তিশালী জাওয়াদ’ শিক্ষার্থীকে চাপা দেওয়া বাসচালকের সহকারী গ্রেফতার মাদ্রাসাছাত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণে শিক্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড গরুকে বিয়ে করে ঘুমের জন্য নরম বালিশ-বিছানার ব্যবস্থাও করেছেন তিনি বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বরিশাল বিভাগে প্রথম মোস্তফা দেশে ২২৭ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু দুই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটে ৯০ ভাগ পরীক্ষার্থী ফেল

ডেস্করিপোর্ট  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীই ফেল করেছে। উত্তীর্ণ হয়ে মাত্র ১০ শতাংশ। যত গতবছরের তুলনায় ৩ শতাংশ কম।

বুধবার (৩ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রশাসনিক ভবনস্থ অধ্যাপক আব্দুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে ভর্তি পরীক্ষার এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

এ বছর ‘ক’ ইউনিটে আবেদন করেছিলেন ১ লক্ষ ১৭ হাজার ৯৫৭ জন। এরমধ্যে অংশগ্রহণ করেছেন ৯৪ হাজার ৫০৫ জন। পাস করেছেন মাত্র ১০ হাজার ১৬৫ জন শিক্ষার্থী, যা মোট শিক্ষার্থীর ১০ দশমিক ৭৬ শতাংশ। বাকি ৮৯ দশমিক ২৪ শতাংশ শিক্ষার্থীই ফেল করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মোট এক লাখ ১৭ হাজার ৯৫৭ জন শিক্ষার্থী ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন করলেও শেষ পর্যন্ত পরীক্ষায় অংশ নেয় ৯৪ হাজার ৫০৯ জন। এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষায় সমন্বিতভাবে ১০ হাজার ১৬৫ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়।

‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় সর্বমোট ১২০ নম্বরের মধ্যে ১১৭ দশমিক ৭৫ পেয়ে মেধা তালিকার প্রথম স্থানে আছেন বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করা মেফতাউল আলম সিয়াম। চিটাগং কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ আসিফ করিম ১১২ দশমিক ৭৫ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় এবং খুলনা পাবলিক কলেজ থেকে আসা নিত্য আনন্দ বিশ্বাস ১১১ দশমিক ৯৫ নম্বর পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন।

গত ১ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরের প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন শিক্ষার্থীরা।