শুক্রবার, ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং, বিকাল ৪:০৫

অপূর্বকে জড়িয়ে গুজব ছড়ালে আইনি ব্যবস্থা নেবেন তিশা

বিনোদন ডেস্ক  জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও নাজিয়া হাসান অদিতির সংসার ভাঙার সঙ্গে অনেকে জড়াচ্ছেন অভিনেত্রী তানজিন তিশাকে। এমনকি কয়েকটি অনলাইনও প্রকাশ করেছে এমন খবর।

এবার কারো নাম উল্লেখ না করে এমন গুজব না ছড়াতে আহ্বান করলেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী। জানালেন প্রয়োজনে আইনি ব্যবস্থা নেন। এর আগে একই হুঁশিয়ারি দেন অপূর্ব।

সোমবার ভোরে নিজের ফেরিফাইড ফেসবুক পেজে এক পোস্টে তানজিন তিশা লিখেছেন, ‘আমি সাধারণত গুজবে সাড়া দিই না। তবে আজ আমি অনুভব করছি যে, কয়েকটি অনলাইন সংবাদপত্রে প্রকাশিত চলমান গসিপ বন্ধ করা উচিত। দয়া করে আমার নামটি ব্যাবহার করবেন না। এতে আমারসহ শিল্পী এবং তার পরিবারের চলমান পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। আমি সত্যিকার অর্থে বিশ্বাস করি যে, কেউ আমার খ্যাতি কুখ্যাতে ইচ্ছাকৃতভাবে এটি তৈরি করছে।’

ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে অনুরোধ করে তিশা বলেন, ‘দয়া করে এমন খবরে বিশ্বাস করবেন না, যার কোনও সত্যতা নেই। আমি আপনাদের সবাইকে অনুরোধ করছি যেন এই গুজবে আর ভাগ না বসিয়ে এবং ছড়িয়ে না দেন। কারণ, ভুয়া খবর ছড়িয়ে দেয়াও একটি সাইবার অপরাধ।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিশা বলেন, ‘অনুরোধ করছি আপনাকে এই ধরনের ভিত্তিহীন গল্পে আমার নাম উল্লেখ না করার। যারা এই কাজটি চালিয়ে যাবেন তাদের আমার শেষ থেকেই আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’

এদিকে রবিবার রাতে ফেইসবুক পোস্টে অপূর্ব লেখেন, “অত্যন্ত সম্মানের সাথে জানাচ্ছি আমি এবং আমার স্ত্রী অদিতি অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ সমাধানের মধ্য দিয়ে আমাদের সম্পর্কের আইনগতভাবে ইতি টেনেছি। কোন সংবাদমাধ্যম এই ব্যাপারটাতে তৃতীয় কাউকে জড়িয়ে কোন ধরনের ভুল সংবাদ প্রকাশ করলে আমি তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আইনগত ব্যবস্থা নিব।”

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১০ সালের ১৯ আগস্ট অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভাকে বিয়ে করেছিলেন অপূর্ব। যদিও এর পরের বছরের ফেব্রুয়ারিতেই ডিভোর্স হয়ে যায় তাদের। ওই বছরের ১৪ জুলাই অপূর্ব পারিবারিকভাবে নাজিয়া হাসান অদিতিকে বিয়ে করেন। অপূর্ব-অদিতির দাম্পত্য জীবনে আয়াশ নামে এক পুত্র সন্তান রয়েছে।