সোমবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং, রাত ১:০০
শিরোনাম :
জানুয়ারি মাসে মাদক উদ্ধারে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করলো হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লা রিজিওন ভাষা শহিদদের প্রতি অতিরিক্ত ডিআইজি মো: খাইরুল আলম এর শ্রদ্ধা নিবেদন কুমিল্লা রিজিয়নের খাটিহাতা হাইওয়ে থানায় বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত পার্বতীপুরে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত: রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রংপুর স্মার্ট বিচার বিভাগ গড়ে তোলার প্রত্যয় প্রধানমন্ত্রীর রমজানে পণ্যের দাম বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: সালমান এফ রহমান অবসরের ৬ মাসের মধ্যে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের অবসর ভাতা প্রদানের নির্দেশ পটুয়াখালীতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দুর্নীতি প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক ওলামা মাশায়েখ সম্মেলন অনুষ্ঠিত চরকাউয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় আনসার সদস্য সহ আহত ৩ বরিশালে ক্ষদ্র মৎস্যজীবী জেলেদের ৭দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে বিক্ষোভ

বন্যপ্রাণীকে বন্দি করে রাখায় শ্রাবন্তীর বিরুদ্ধে মামলা

বিনোদন ডেস্ক  সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয় টালিউড সুদর্শিনী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। আর সে অভ্যাসই তাকে বিপদে ফেলে দিয়েছে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি পোস্ট করে মামলায় জড়ালেন এ নায়িকা। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৭ বছরের জেল পর্যন্ত হতে পারে শ্রাবন্তীর।

গত ১৫ জানুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন শ্রাবন্তী। যেখানে দেখা যায়, একটি বেজিকে হাতে নিয়ে আদর করছেন অভিনেত্রী। ওই বেজির গলায় ছিল বকলস এবং বাঁধা ছিল মোটা চেইনের সঙ্গে।

ছবিটির ক্যাপশনে শ্রাবন্তী লিখেছিলেন, ‘আচমকা ছোট্ট বন্ধুটির সঙ্গে দেখা হলো’।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, ওই ছবিটি নিয়েই বিপাকে পড়লেন শ্রাবন্তী। তার বিরুদ্ধে বণ্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন ১৯৭২-এর ৯, ১১, ৩৯, ৪৮এ, ৪৯, ৪৯ ধারায় মামলা হয়েছে। শিগগিরই কলকাতার সল্টলেকের ওয়াইল্ডলাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল সেল এবং ডাটা ম্যানেজমেন্ট ইউনিটের সামনে হাজিরা দিতে হবে অভিনেত্রীকে।

এ বিষয়ে ভারতের বনদপ্তরের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বলেন, ‘বন্যপ্রাণীকে এভাবে বন্দি করে রাখা অপরাধ। তার শ্রাবন্তীর মতো একজন তারকা এমন কাজ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি আপলোড করে আরো বড় অন্যায় করেছেন। এটা দেখে অনেকে প্রভাবিত হতে পারেন। অভিনেত্রীর উচিত বনদপ্তরের সঙ্গে সহযোগিতা করা এবং বনপ্রাণ সংরক্ষণের এই লড়াইয়ে আমাদের সাহায্য করা।’

এ বিষয়ে শ্রাবন্তী এখনো মখ না খুললেও তার আইনজীবী এস কে হাবিবউদ্দিন জানান, বনদপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করে আগে পুরো বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে জানবেন তিনি। এরপরই পরবর্তী পদক্ষেপ নির্ধারণ করা হবে।