বৃহস্পতিবার, ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, সকাল ১০:০৩
শিরোনাম :
মা ইলিশ রক্ষা করতে গিয়ে হামলায় আহত পুলিশ পোলট্রি ও ডেইরি শিল্পের সুরক্ষায় সরকার নীতিমালা তৈরি করছে: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অল্প সুদে ঋণ দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী গণধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তা রায়হানুল গ্রেফতার ভোলায় এক ঘণ্টার জন্য পুলিশ সুপার হলেন স্কুলছাত্রী রিমি বরিশালে গণনাট্য সংস্থার একযুগ পূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে ইলিশ শিকারের দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতে দুই জেলের কারাদন্ড হাজী সেলিমের ছেলে ইরফানের বিরুদ্ধে মামলার তদন্তভার ডিবিতে যাচ্ছে হোয়াইট হাউসকে করোনার হট জোন করেছেন ট্রাম্প ট্রাফিক আইন মেনে চলুন, ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করুন: ডিসি জাকির হোসেন মজুমদার

কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের জনপ্রিয় ১৪ গান

ডেক্সরিপোর্ট  বাংলাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর সোমবার (৬ জুলাই) সন্ধ্যায় মৃত্যু বরণ করেছেন। এর আগে দীর্ঘ দিন তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

এন্ড্রু কিশোর ১৯৭৭ সালে আলম খানের সুরে ‘মেইল ট্রেন’ চলচ্চিত্রে ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তাঁর কেউ’ গানের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক যাত্রা শুরু হয়। বাংলা চলচ্চিত্রের সর্বাধিক ১৫ হাজার গান গাওয়া শিল্পী।

এন্ড্রু কিশোরের জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে রয়েছে,

১. ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তাঁর কেউ’

২. ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’

৩. ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’

৪. ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’

৫. ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি’

৬. ‘আমার বুকের মধ্যে খানে’

৭. ‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান’

৮. ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’

৯. ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’

১০. ‘পড়ে না চোখের পলক’

১১. ‘পদ্মপাতার পানি’

১২. ‘ওগো বিদেশিনী’

১৩. ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’

১৪. ‘আমি চিরকাল প্রেমের কাঙাল’

শিল্পী এ্যান্ড্রূ কিশোরের জন্ম ৪ নভেম্বর, ১৯৫৫ সালে রাজশাহীতে। সেখানেই কেটেছে তার শৈশব ও কৈশোর। এন্ড্রু কিশোর প্রাথমিকভাবে সংগীতের পাঠ শুরু করেন রাজশাহীর আবদুল আজিজ বাচ্চুর কাছে। একসময় গানের নেশায় রাজধানীতে ছুটে আসেন। মুক্তিযুদ্ধের পর তিনি রবীন্দ্রসংগীত, নজরুলসংগীত, আধুনিক গান, লোকগান ও দেশাত্মবোধক গানে রেডিওর তালিকাভুক্ত শিল্পী হন।

সোমবার এই বিখ্যাত শিল্পীর মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে তার স্ত্রী সামাজিকমাধ্যমে জানিয়েছিলেন, এন্ড্রু কিশোরের শরীরের অবস্থা ভালো না। তিনি সামাজিকমাধ্যমে লিখেছিলেন, ‘এখন কিশোর কোনো কথা বলে না। চুপচাপ চোখ বন্ধ করে শুয়ে থাকে। আমি বলি কী ভাব, বলে কিছু না, পুরানো কথা মনে পড়ে আর ঈশ্বরকে বলি আমাকে তাড়াতাড়ি নিয়ে যাও, বেশি কষ্ট দিও না।’

লিপিকা লিখেছেন, ‘ক্যানসারের শেষ ধাপে খুব যন্ত্রণাদায়ক। এন্ড্রু কিশোরের জন্য সবাই প্রাণ খুলে দোয়া করবেন, যেন কম কষ্ট পায় এবং একটু শান্তিতে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে যেতে পারে।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘আমার মনে হল, কিশোর শুধু আমার বা আমাদের সন্তানের বা আমাদের পরিবারের নয় বরং দেশের মানুষের একটা অংশ বা সম্পদ। তাই এই কথাগুলো দেশের ভক্ত শ্রোতাদের বলা বা জানানো আমার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।’

তিনি লিখেছেন, ‘এটাই শেষ পোস্ট, এরপর আর কিছু বলা বা লেখার মত আমার মানসিক অবস্থা থাকবে না। এখনও মাঝে মাঝে দুঃস্বপ্ন মনে হয়, কিশোর থাকবে না অথচ আমি থাকব, মেনে নিতে পারছি না। এই অসময়ে, সবাই সাবধানে থাকবেন, নিজের প্রতি যত্ন নিবেন, সুস্থ থাকবেন, ভাল থাকবেন আর এন্ড্রু কিশোরের এর প্রতি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টি রাখবেন ও প্রাণ খুলে দোয়া করবেন।’