বুধবার, ২২শে জুন, ২০২১ ইং, ভোর ৫:৩৩

বিধিনিষেধ শেষ হলেই খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

ডেস্ক রিপোর্ট  চলতি মাসে চলমান লকডাউন তুলে নেওয়া হলে আগামী জুন মাস থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা করছে সরকার। বিভিন্ন সূত্র থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। দেশে নতুন করে বিধিনিষেধ আরো এক সপ্তাহ বাড়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন করে আরও এক সপ্তাহ ছুটি বৃদ্ধির চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। এ সময়ের মধ্যে যদি লকডাউন তুলে দেওয়া হয় তাহলে স্কুল-কলেজ খোলার প্রস্তুতি শুরু করা হবে।

রবিবার (২৩ মে) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, দেশে করোনার কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির মেয়াদ আরও এক দফা বাড়তে পারে। মহামারি মোকাবিলায় চলমান লকডাউন তথা বিধিনিষেধের সময়সীমা বৃদ্ধির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে এ বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হতে পারে।

টানা ১৫ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। করোনা সংক্রমন ৫ শতাংশের নীচে না এলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খোলার পরামর্শ কভিড সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির। এছাড়া স্কুল খোলার আগে শিক্ষার্থীদেরও করোনার টিকা দিতে চায় সরকার। এসব কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কবে খুলবে তা কেউ বলতে পারছে না। তবে সহসা যে খুলছে এমন ধারণা করছেন অনেকেই।

অন্যদিকে গত শিক্ষাবর্ষে লেখাপড়া হয়নি। কিছু না জেনেই পরের শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছে শিক্ষার্থীরা। আর চলতি শিক্ষাবর্ষেরও প্রায় অর্ধেক সময় পেরিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। তাই স্কুল খুলতে দেড়ি হলে কী হবে, এমন প্রশ্ন এখন সবার।

মাউশির কর্মকর্তারা বলছেন, স্কুল খুলতে দেড়ি হলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রমে রাখার জন্য অনলাইনের শিক্ষা কার্যক্রমে আরো জোর দেয়া হবে। বর্তমানে অনলাইন ক্লাস করার ক্ষেত্রে যে সব ঘাটতি, সমস্যা রয়েছে তা দুর করার হবে। এছাড়া রেডিও এবং টেলিভিশনেরও পাঠদানের প্রতি গুরুত্ব দেয়া হবে। সব শিক্ষার্থী যাতে টেলিভিশনের মাধ্যমে পাঠদান দেখতে পারে, সে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বাড়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কিন্তু দেশের চলমান লকডাউনে ৩০ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এজন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটিও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হলেও চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস শেষ করতে বেশি গুরুত্ব দিয়ে সপ্তাহে ছয় দিন তাদের ক্লাস নেওয়া হবে।