রবিবার, ৩রা জুলাই, ২০২২ ইং, দুপুর ১২:৩৮

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ ও সামাজিক সমস্যা নিরসনে ইমামগণ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারেন: এসপি খাইরুল আলম

ডেস্করিপোর্ট  কুষ্টিয়া জেলার এসপি খাইরুল আলম বলেছেন,সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ ও সামাজিক সমস্যা নিরসনে ইমামগণ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারেন।

বুধবার (২২ জুন ২০২২) সকাল ১১ টায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন, জেলা কার্যালয়, কুষ্টিয়া কর্তৃক আয়োজিত “সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ এবং সামাজিক সমস্যা নিরসন” কল্পে ইমামগণের ভূমিকা শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা-২০২২ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জেলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া মোঃ খাইরুল আলম।

পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ একটি ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশ। সন্ত্রাস ও জঙ্গি তৎপরতা সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য অভিশাপ এবং মানবতার প্রতি চরম হুমকি। মোটিভেটেড কোন গ্রুপের লোকজন কর্তৃক তাদের নিজদের স্বার্থসিদ্ধি ও আতঙ্ক সৃষ্টি করার নিমিত্তে বোমা বিস্ফোরণ, অপহরণ, ভয়-ভীতি বা গুপ্ত হত্যার মত ঘৃণ্য যে কাজ করে থাকে তাই ‘সন্ত্রাসবাদ’ এবং একটি উগ্রপন্থি গোষ্ঠী যারা যুদ্ধ বা সহিংসতার মাধ্যমে সব কিছু আদায় করতে চায় তাই ‘জঙ্গিবাদ’ যা সভ্য সমাজে সাধারণত গ্রহণযোগ্য নয়। এ সময় পুলিশ সুপার আরো বলেন, বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ ও সামাজিক সমস্যা নিরসনে ইমাম মুয়াজ্জিন ও আলেম ওলামারা গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখে যাচ্ছেন এবং তারা আগামীতে আরো বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারবেন, যা এ দেশ সবসময় আশা করে। সমাজে যে শান্তি, স্থিতিশীলতা বিরাজমান আছে, সেখানে ইমামগণের ভূমিকা আছে। পুলিশ সুপার এ সময় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ এবং সামাজিক সমস্যা নিরসনে ইমাম ও খতিবদের অগ্রণী ভূমিকা পালন সংক্রান্তে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

মাঠ পর্যায়ে যে সমস্ত ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণ ভাল কাজ করেছেন এবং নির্দেশনা প্রতিপালনে তৎপর ছিলেন, তাদের মধ্য হতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ৫৪ জনকে নগদ অর্থ প্রদান এবং ১২ জনকে সুদ মুক্ত ঋণের ব্যবস্থা করা হয়।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ হেলালউজ্জামান, উপ পরিচালক, ইসলামিক ফাউন্ডেশন কুষ্টিয়া, এ জে এম সিরাজুল মূনীর, সহকারী পরিচালক, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, হাফেজ মাওঃ মোঃ ফয়সাল আহমাদ, মাস্টার ট্রেইনার, ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং কুষ্টিয়া জেলার ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণ।