বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং, সকাল ৬:৩৩
শিরোনাম :
করোনায় ২৬নং ওয়ার্ডের চার মৃত ব্যাক্তির স্বরনে মহানগর মুছলিহীন ক‌মি‌টির উদ্যোগে দোয়া অনুষ্ঠিত ভোলায় জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১ ‘বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক নতুন মাত্রায়’ ঘণ্টায় ১১৭ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে ‘শক্তিশালী জাওয়াদ’ শিক্ষার্থীকে চাপা দেওয়া বাসচালকের সহকারী গ্রেফতার মাদ্রাসাছাত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণে শিক্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড গরুকে বিয়ে করে ঘুমের জন্য নরম বালিশ-বিছানার ব্যবস্থাও করেছেন তিনি বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বরিশাল বিভাগে প্রথম মোস্তফা দেশে ২২৭ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু দুই

অক্টোবরে রফতানি আয়ে রেকর্ড

ডেস্করিপোর্ট  করোনার ধাক্কা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের রফতানি খাত। গত অক্টোবর মাসে ৪৭২ কোটি ৭০ লাখ ৫০ হাজার ডলার সমমূল্যের পণ্য রফতানি হয়েছে। দেশীয় মুদ্রায় এর পরিমাণ প্রায় ৪০ হাজার ১৮০ কোটি টাকা। একক মাস হিসেবে এতো বেশি রফতানি আয় আর দেশে আসেনি। যাকে একক মাসে রেকর্ড আয় বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্যানুযায়ী, গত বছরের অক্টোবরের তুলনায় এ বছরের অক্টোবরে রফতানি আয় বেড়েছে ৬০ শতাংশের বেশি। এর আগের মাস সেপ্টেম্বরেও একক মাসে রেকর্ড পরিমাণ ৪১৬ কোটি ৫৪ লাখ ডলার সমমূল্যের পণ্য রফতানি হয়েছিল, সেই সময় প্রবৃদ্ধি ছিল ৩৮ শতাংশ। সবমিলিয়ে চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম চার মাস শেষে রফতানি আয়ে ২২ দশমিক ৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, ডলারের মূল্য বৃদ্ধির ফলে কাঁচামালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তাছাড়া বিশ্ববাজারে পণ্যমূল্য বেড়ে যাওয়ায় উৎপাদিত পণ্যের দামও বেড়েছে।

ইপিবির তথ্যানুযায়ী, তৈরি পোশাকের উপর ভর করেই দেশের রফতানি বাড়ছে। অক্টোবরে পোশাক রফতানি থেকে মোট ১১৬২ কোটি ১১ লাখ ডলার (৯৮ হাজার ৭৭৯ কোটি টাকা) দেশে এসেছে, যা মোট রফতানির ৮০ দশমিক ১৩ শতাংশ। অর্থবছরের চার মাসে পোশাক রফতানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২০ দশমিক ৭৮ শতাংশ। তৈরি পোশাক শিল্প মালিকরা বলছেন, কোরবানির ঈদের ছুটি এবং লকডাউনের কারণে ১০-১১ দিন পোশাক কারখানা বন্ধ থাকায় জুলাই মাসে রফতানি আয় কম এসেছিল। ১ আগস্ট থেকে পুরোদমে কারখানায় উৎপাদন চলছে, প্রচুর অর্ডার আসছে। এজন্য রফতানির আকারও বেড়েছে।

তাছাড়া বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের প্রধান গন্তব্য ইউরোপ-আমেরিকায় করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। মানুষ আগের মতো কেনাকাটা করছেন। সে কারণে অর্ডারও বেড়েছে। আগামী ডিসেম্বরে বড়দিনকে কেন্দ্র করে এবার কারখানাগুলো ভালো অর্ডার পাচ্ছে।