রবিবার, ৯ই আগস্ট, ২০২০ ইং, বিকাল ৪:৫৮

শুভ জন্মদিন ঢাকা কলেজ: ঐতিহ্যের ১৭৯ বছর

ডেক্সরিপোর্ট  ১৮৪১ খ্রিস্টাব্দের ১৮ জুলাই উপমহাদেশের প্রথম আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঢাকা কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। গবেষণার ভিত্তিতে ইতিহাসবিদগণ ১৮৪১ সালের ১৮ জুলাই রবিবার শুভদিনে ঢাকা কলেজের যাত্রাকাল হিসেবে উল্লেখ করেন। যদিও অনেকের মতে ১৮৪১ সালের জুলাই ৭ এবং আগস্ট ১১ এর মধ্যবর্তী কোনো একটি তারিখে বাংলাদেশের প্রথম আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান- ঢাকা কলেজ স্থাপিত হয়।

ঢাকা কলেজ প্রতিষ্ঠার সঠিক তারিখ সম্পর্কিত অনিশ্চয়তার অন্যতম কারণ হলো, কলেজ প্রতিষ্ঠার সঠিক দিন বা তারিখ কোনো গ্রন্থে বা অন্য কোথাও উল্লেখ নেই। সুনির্দিষ্টভাবে শুধু ১৮৪১ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠার সন পাওয়া যায়। তবে পরবর্তীতে গবেষণার ভিত্তিতে ইতিহাসবিদগণ ১৮৪১ সালের ১৮ জুলাইকে ঢাকা কলেজের যাত্রাকাল হিসেবে উল্লেখ করেন।

বলাবাহুল্য, এ কলেজ প্রতিষ্টার পর পরই বদলে যায় সমগ্র ঢাকার চালচিত্র। ঢাকা হয়ে ওঠে সমগ্র পূর্ববাংলার ইংরেজি শিক্ষার প্রাণকেন্দ্র। প্রথম ঢাকা কলেজ ভবন কেমব্রীজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এবং হিন্দু কলেজের শিক্ষক জে. আয়ারল্যান্ডকে ঢাকা কলেজের প্রথম প্রিন্সিপাল নিযুক্ত করা হয়। তার আগমনের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যেতে থাকে ঢাকা কলেজের প্রাতিষ্ঠানিক এবং শিক্ষাগত ব্যাবস্থাপনার ভিত্তি। সে অর্থে আয়ারল্যান্ডই ঢাকা কলেজের সত্যিকারের গুরুত্বপূর্ণ সংগঠক।

তিনি কলেজের শিক্ষাদান ব্যবস্থাপনায় আনেন বৈপ্রবিক পরিবর্তন। শিক্ষা ব্যবস্থার ক্রম-বিকাশ ও ঢাকা কলেজ ১৮৫৭ সালের ২৪ জানুয়ারি কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা আধুনিক বাংলার ইতিহাসে যেমন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, তেমনি ঢাকা কলেজের জন্যও এক অভাবনীয় ঘটনা।
বর্তমানে কলেজটি ১৮.৫৭ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত । ২০১৬ সাল পর্যন্ত এই কলেজটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত থাকলেও ২০১৭ সাল থেকে ঢাকা ইউনিভার্সিটির অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এটি ১৮ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। এর ছাত্রসংখ্যা এখন ২৫ হাজারের বেশি। কলেজে শিক্ষায়তনিক কর্মকর্তা ২০০ এর বেশী এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা ১৫০ জনের অধিক। ছাত্রদের জন্য ঢাকা কলেজে ৮টি ছাত্রাবাস রয়েছে । এসব ছাত্রাবাসে ছাত্রদের আধুনিক এবং উন্নত জীবনযাত্রা নিশ্চিত করে থাকে।

এখানে এখন উচ্চ মাধ্যমিক পাঠ্যক্রমের সঙ্গে সঙ্গে স্নাতক (বি.এ, বি.বি.এ, বি.এস.সি,) ও স্নাতকোত্তর ( এমএ, এমবিএ, এমএসসি) পর্যায়ে ১৯টি বিষয়ে শিক্ষাদান কার্যক্রম চালু রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে সংগঠন, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, ঢাকা কলেজ ডিবেটিং ক্লাব, আছে সাংবাদিক সমিতি, বিএনসিসি, রেড ক্রিসেন্ট, রোভার স্কাউট, বাঁধন,মিউজিক স্কুল, অ্যাডভেঞ্চার ক্লাব, বিজনেস ক্লাব, সায়েন্স ক্লাব, বাংলাদেশ ওপেন সায়েন্স অর্গানাইজেশন, বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চ, নেচার স্টাডি ক্লাব, ভূগোলবিদের বাসা। ঢাকা কলেজকে সংক্ষিপ্ত আকারে ডিসি বলা হয়।

বর্তমানে এই কলেজের অধ্যক্ষ পদে আছেন প্রফেসর নেহাল আহমেদ। করোনা পরিস্থিতিতে জন্মদিনকে ঘিরে কোনো আয়োজন না থাকায় শিক্ষাঙ্গন মেতে উঠছে না শিক্ষার্থীদের আনন্দে। তবুও শিক্ষার্থীদের একটাই চাওয়া প্রান ফিরে পাক প্রানের এই ঢাকা কলেজ।

১৭৯ বছর ঐতিহ্য নিয়ে টিকে থাকা এই প্রতিষ্ঠান এবার ১৮০ বছরে পা দিচ্ছে। শুভ হোক এই পথযাত্রা। এই ঐতিহ্য নিয়ে ঢাকা কলেজ টিকে থাকুক চিরকাল।শুভ জন্মদিন ঢাকা কলেজ।