বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, সকাল ৭:৩৬
শিরোনাম :
বকশীগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের মাস্ক ব্যবহার কারীদের ফুলেল শুভেচ্ছা ! পটুয়াখালীতে টাকা না দেয়ায় বাবাকে হত্যা, ছেলে গ্রেফতার জনসেবা নিশ্চিত করতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী রাশিয়ার করোনার টিকা ৯৫ শতাংশ কার্যকর দাবি বকশীগঞ্জে ঢাকা আহছানিয়া মিশনের প্রকল্প অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত স্বর্ণের দাম ভরিতে ২৫০৮ টাকা কমল গোল্ডেন মনিরের মামলা ডিবিতে হস্তান্তর ঢাকায় এল সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত নতুন উড়োজাহাজ ‘ধ্রুবতারা’ ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আন্দোলন, সিঙ্গাপুরে ১৫ বাংলাদেশিকে বহিষ্কার ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ফরিদুল হক

বাবা-মায়ের চাপে ফুটবল খেলা ছেড়েছিলেন বাইডেন

অনলাইন ডেস্ক  যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার দৌড়ে একধাপ এগিয়ে রয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। তিনি আইনজীবী পেশা ছেড়ে রাজনীতিতে অংশ নেয়ার পরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সবচেয়ে কনিষ্ঠ সিনেট সদস্য নির্বাচিত হন। এর আগে আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দুইবার দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

শুধু তাই নয়, জো বাইডেন একজন ভালোমানের অ্যাথলেটও ছিলেন? স্কুল ফুটবলে ডেলাওয়্যার রাজ্যের এক দুর্দান্ত খেলোয়াড় ছিলেন। জো বাইডেন ছোটবেলা থেকেই তোঁতলিয়ে কথা বলতেন। তিনি নিজের আত্মবিশ্বাস অর্জনের জন্যই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডেলাওয়্যার ক্লেমন্টে অবস্থিত আর্কমিয়ার একাডেমিতে যোগ দিয়েছিলেন।

২০০৭ সালে স্মৃতিচারণ করে বাইডেন বলেছেন, ছোট বয়সে আমি ফুটবলে যতটা আত্মবিশ্বাসী ছিলাম ততটা আত্মবিশ্বাস আমি কথা বলায় পেতাম না। খেলাধুলা আমার কাছে যেমন স্বাভাবিক ছিল তেমনি কথা বলায় ছিল অস্বাভাবিক এবং খেলাধুলা আমার গ্রহণযোগ্যতার টিকিট হিসেবে প্রমাণিত হয়েছিল। আমি কোনো খেলায় ভয় পাইনি।

জো বাইডেন আর্কমিয়ার একাডেমিতে ভর্তির সময় খেলাধুলার একাধিক ইভেন্টে অংশ নেন। তবে ফুটবলে ভালো করায় তাতেই ক্যারিয়ার গড়েন। তার কোচ জন ওয়ালশ একবার বলেছিলেন- বাইডেনের বয়স যখন ১৬ বছর ছিল তখন সে দুর্দান্ত ফুটবল খেলত। সে পাসিংয়ের জন্য তখন বিখ্যাত ছিল।

১৯৬০ সালে ওয়ালশ যখন আর্কমিয়ার একাডেমির সিনিয়র দলের প্রধান কোচ হন তখন একটি খেলায় ১০-০ গোলের বড় ব্যবধানে জয় পায় তার দল। সেই দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন জো বাইডেন।

২০১২ সালে ওয়ালশকে ডেলাওয়্যার স্পোর্টসের হল অফ ফেমে অন্তর্ভুক্ত করা হলে সেই অনুষ্ঠানে যোগ দেন জো বাইডেন। ২০১২ সালে ডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রচারণার সময় জো বাইডেন বলেছেন, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে ১৯৬৩ সালে শেষবার খেলেছিলেন তিনি। এরপর তিনি বাবা-মায়ের চাপে পড়ে বাধ্যতামূলক খেলা ছাড়েন। তবে বাইডেন বলেছেন, দুই বছর পর তিনি আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুটবদল দলে যোগ দিয়েছিলেন।